শামীম মিয়া(স্টাফ রিপোর্টার)

টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার গোড়াই ইউনিয়নের রশিদ দেওহাটা এলাকায় গত সোমবার রাতে স্বামী জলিলের (৫৫) হাতে স্ত্রী ছাহেরা (৫০) খুন হয়েছে।এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে স্বামীকে আটক করে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্ত্রীকে নিজ হাতে খুনের তথ্য পায় পুলিশ।

পরে বুধবার (১৩ নভেম্বর) জলিল কে জেলা জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আকরামুল ইসলামের আদালতে হাজির করা হলে ১৬৪ ধারায় হত্যার স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি দেয়। এতে বলা হয়,সাংসারিক জীবনে স্বামী জলিল ও ছাহেরার সাথে কলহ লেগেই থাকতো। স্বামীর কোনো কথাই শুনতো না স্ত্রী।স্বীকারোক্তিতে ঘাতক জলিল আরও জানায়, ভালো কথা বললেও তাকে অকথ্য ভাষায় গালি-গালাজ এবং প্রায় রাতেই ছাহেরা তার উপর শারীরিকভাবে নির্যাতন করতো। ঘটনার রাতেও আটটার দিকে ছাহেরা জলিলকে মারধর করে এক পর্যায়ে জলিল তার স্ত্রীকে লাথি মারলে সে বিছানায় গিয়ে পড়ে এবং গলা চেপে ধরে আধমরা করার পর তার গলায় উড়না পেচিয়ে শ্বাসঃরুদ্ধ করে খুন করে লাশ ঘরে ফেলে রাখে।

আদালতে আসামী জলিলের স্বীকারোক্তির কথা উল্লেখ করে মির্জাপুর থানার এস.আই মিজানুর রহমান সাংবাদিকদের জানান,ঘটনার পরদিন সকালে সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে ছাহেরার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।পরে ছাহেরার মেয়ে বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন, মামলা নাম্বার-১৩ (১২-১১-২০১৯ ইং)। জড়িত সন্দেহে ছাহেরার স্বামীকে গ্রেপ্তার করে জিজ্ঞাসাবাদে খুনের তথ্য বেরিয়ে আসে। সঠিক তদন্ত শেষে মামলার অভিযোগপত্র অতি দ্রুত আদালতে পেশ করা হবে বলে জানান তদন্তকারী এই কর্মকর্তা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here