স্টাফ রিপোর্টার:-
বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ বলেছেন, দেশ মার্তৃকা রক্ষা ও দেশের গৌরব উজ্জল সমুন্মত রাখতে ক্যাডেটরা সেবার ব্রত নিয়ে নিয়ম-শৃঙ্খলার মধ্যে থেকে নিরলস ভাবে কাজ থাকেন। দেশ ও জাতির যে কোন প্রয়োজনে ক্যাডেটরা নিষ্ঠা ও সততার সঙ্গে তাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন এবং ভবিষ্যতেও করে যাবে। তিনি আজ শুক্রবার টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজে প্রাক্তন ক্যাডেটদের সংগঠন (মেকার) ১৩ তম পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন। সকালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ হেলিকপ্টার যোগে মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজে এসে পৌছালে তাকে অভ্যর্থনা জানান জিওসি ৯ পদাতিক ডিভিশন ও এরিয়া কমান্ডার সাভার অঞ্চলের মেজর জেনারেল মো. আকবর হোসেন, কলেজের অধ্যক্ষ বিমান রায় চৌধূরী, মেকার সভাপতি ও সাবেক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল শাহ মো. সুলতান উদ্দিন ইকবাল (বীর প্রতীক) সহ আগত অতিথিবৃন্দ। বেলুন উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্ধোধনের পর মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজের ক্যাডেট ও সাবেক ক্যাডেটগন প্রধান অতিথির সম্মানে কুচকাওয়াজ প্রদর্শন করেন।
প্রধান অতিথির বক্তৃতায় জেনারেল আজিজ আহমেদ বলেন, জ্ঞানই শক্তি এই মুলমন্ত্রকে ধারন করে জ্ঞানের বলে বলিয়ান হয়ে ১৯৬৩ সাল থেকে মির্জাপুর ক্যাডেট দেশে বিদেশে জ্ঞানের প্রদীপ শিখা প্রজ্জলন করে যাচ্ছে। পড়ালেখার পাশাপাশি সহশিক্ষা মুলক কর্মকান্ডে আমাদের ক্যাডেটরা সমান ভাবে নৈপুর্ন প্রদর্শন করছে। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে ক্যাডেটরা দক্ষতার সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেন। মেকার ১৩ তম পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের উদ্যেশ্যে তিনি বলেন, সুন্দর একটি অনুষ্ঠান হয়েছে যা দেখে বর্তমান ও সাবেক ক্যাডেট এবং তাদের পরিবারবর্গ অনুপ্রাণিত হবে। পরে তিনি ক্যাডেটদের দ্বারা বর্নাঢ্য চিত্র প্রদশর্নী ও বিজ্ঞান মেলা পরিদর্শন এবং ক্যাডেট কলেজের সামনে শহীদ মিনার এলাকায় বৃক্ষরোপন করেন।এ সময় সাবেক সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল এম এ মুবিন, মেজর জেনারেল মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির, মেজর জেনারেল মো. সাইফুল আবেদীন, মেজর জেনারেল মো. মোসফেকুর রহমান, রিয়ার এডমিরাল খালেদ ইকবাল, বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ আশরাফজ্জামান সিদ্দিক, প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
মেকার ১৩ তম পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে নবীন-প্রবীন ক্যাডেটদের মিলন মেলা
মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজ একটি ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ১৯৬৩ সালে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক সংলগ্ন অত্যান্ত মনোরম পরিবেশে বিশাল এলাকা নিয়ে গোড়াই এলাকায় মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয়। মির্জাপুর এক্্রক্যাডেট এসোসিয়েশন (মেকার) ১৩ তম তিন দিন ব্যাপি পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান উপলক্ষে পুরো ক্যাম্পাস নানা সাজে সজ্জিত করা হয়। গত বৃহস্পতি, আজ শুক্রবার ও আগামীকাল শনিবার জমজমাট সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শেষ হবে। অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে ছিলেন প্রথম ব্যাচ থেকে শুরু করে সর্বশেষ ২০১৯ সালের ব্যাচের ক্যাডেটরা। দীর্ঘ দিন পর এমন একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পেরে অনেকেই আবেগ-আপ্লুত হয়ে পরেন। অনুষ্ঠানে সুউডেন ও রাশিয়া থেকে এসেছেন ১৩ তম ব্যাচের সাবেক ক্যাডেট গোলাম মাওলা ও ডা. মজিবর রহমান। প্রাক্তন এই দুই ক্যাডেট তাদের অনুভুতির কথা ব্যক্ত করে বলেন, আমরা যে আনন্দ পেয়েছি তা ভাষায় প্রকাশ করতে পারছি না। নানা ব্যস্ততার মাঝেও এমন একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। দীর্ঘ দিন পর সহপাঠিদের একত্র পেয়েছি। পুরনো দিনের গল্প করেছি। একই কথা বললেন ১৪ তম ব্যাচের ক্যাডেট মো. আমিনুর রহমান খান ও ২৬ তম ব্যাচের ক্যাডেট ডা. ফাহিদ। ১৩ তম পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পেরে প্রানের সঞ্চার খুঁজে পেয়েছেন বলে তারা জানিয়েছেন।
এ ব্যাপারে মেকার সভাপতি ও সাবেক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল শাহ মো. সুলতান উদ্দিন ইকবাল (বীর প্রতীক) বলেন, মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজ আমাদের ঠিকানা। এখান থেকে আমরা জীবনের পথচলা শুরু করেছিলাম। এই কলেজ আমাদের অনেক কিছু দিয়েছে যার ঋণ কোন দিন শোধ করা যাবে না। এখানকার প্রতিটি ইটের কনা আমাদের চেনা-জানা। সকলের সহযোগিতায় ১৩ তম পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান করতে পেরেছি এ জন্য সকলের কাছে কৃতজ্ঞ। ভবিষ্যতে এই অনুষ্ঠান আরো পরিসর হবে এমনটাই প্রত্যাশা করেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here