ad cb under

মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল ॥
টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্েরর একজন পরিচ্ছনতাকর্মী ও কমিউিনিটি ক্লিনিকের সিএইচসিপি (স্বাস্থ্য কর্মীসহ) এবং একটি ঔষধ কোম্পানীর এরিয়া ম্যানেজরসহসহ ১০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। নিরাপত্তার জন্য উপজেলা প্রশাসন ২৩০ বাড়ি, একটি বাজার ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্েরর আবাসিক ভবন লগডাউন করেছেন। ১০ জন করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পরেছে। আক্রান্ত ১০ জনের মধ্যে ৫৫ বছর বয়সী এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। আজ বুধবার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাকসুদা খানম ১০ জনের করোনা আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্র সুত্র জানান, আজ আক্রান্ত হয়েছেন, অপসোনিন ফার্মাসিটিক্যাল ঔষধ কোম্পানীর মির্জাপুর উপজেলার এরিয়া ম্যানেজার মো. রুহুল আমীন। তিনি গোড়াই হলিদাচালা আবু সাঈদের বাড়িতে ভাড়া থাকেন। করোনা উপস্বর্গ দেখা দেওয়ায় গত রবিবার (৯ মে) কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে নমুনা দেন। সোমবার (১০ মে) ওই নমুনা ঢাকায় পাঠানো হয়। আজ বুধবার তার করোনায় আক্রান্তের বিষয়টি জানতে পারেন কালিয়াকৈর স্বাস্থ্য বিভাগ। তিনি তার বাসায় আইসোলেশনে থাকবেন বলে মির্জাপুর স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে। এর আগে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্েরর পরিচ্ছন্নতাকর্মী ইউনুছ মিয়া (২৮), গোড়াই নাজিরপাড়া এলাকার নির্মান শ্রমিক সুজন মিয়া (২৫), উপজেলা গবড়া কমিউনিটি ক্লিনিকের সিএইচসিপি (স্বাস্থ্য কর্মী) ও স্বল্প মহেড়া গ্রামের কহিনুর তালুকদারের ছেলে মো. মঞ্জুরুল ইসলাম তালকদার রিয়াদ (৩৪) আজগানা ইউনিয়নের তেলিনা গ্রামের মানিক উদ্দিনের ছেলে মো. হযরত আলী মিয়া (৫০) ভাওড়া বৈরাগীপাড়া গ্রামের অনিল সরকার (৪৮), সাটিয়াচড়া গ্রামের আনন্দা রাজবংশী (২৮), কামারাপাড়া গ্রামের রেনু বেগম (৫৫) ওয়ার্শি ইউনিয়নের নতুন কহেলা গ্রামের ৫৯ বছরের এক বৃদ্ধ এবং আগজানা গ্রামের ১৫ বছরের এক কিশোর করোনায় আক্রান্ত হন। নিহত রেনু বেগম, আনন্দ রাজবংশী ও হযরত আলী ঢাকা ফেরত এবং অনিল সরকার ও ৫৯ বছরের বৃদ্ধ নারায়নগঞ্জ ফেরত এবং স্বাস্থ্য কম্পেপ্লেক্্েরর দুইজন স্বাস্থ্য কর্মী। আক্রান্তদে আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছে।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিস (সরকারী হাসপাতাল ) সুত্র জানায়, এ পর্যন্ত মির্জাপুরে পৌরসভাসহ ১৪ ইউনিয়নে ৩০৫ জনের করোনা ভাইরাসের রক্তের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এর মধ্যে ১০ জনের রক্তে পজিটিপ ধরা পরে। হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ৪৮০ জন। আক্রান্তদের ২৩০ বাড়ি, একটি বাজার এবং স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্েরর আবাসিক ভবন লগডাউন লগডাউন করা হয়েছে বলে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. যুবায়ের হোসেন এবং থানার অফিসার ইনচার্জ মো. সায়েদুর রহমান জানিয়েছেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবদুল মালেক বলেন, করোনায় আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছে। নিরাপত্তার জন্য আক্রান্তদের বাড়ির আশপাশ ২৩০ বাড়ি, একটি বাজার এবং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্েরর আবাসিক ভবন লগডাউন করে দেওয়া হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here