নাবালিকা স্ত্রীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক ধর্ষণ

0
789
Loading...

অপ্রাপ্তবয়স্ক স্ত্রীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ককে ধর্ষণ এবং অপরাধের শামিল বলে গণ্য করা হবে বলে রায় দিয়েছেন ভারতের সুপ্রিমকোর্ট। ভারতের সর্বোচ্চ আদালত বুধবার এক রায়ে বলেছেন, বিবাহিত স্ত্রীর

বয়সও যদি আঠারো বছরের কম হয়, তার সঙ্গে যৌন সম্পর্ক করলে, সেটাও ধর্ষণ বলে বিবেচিত হবে। পিটিআই জানায়, ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৫ ধারায় ধর্ষণের যে সংজ্ঞা রয়েছে, সেখানে একটি ছাড় দিয়ে বলা হয়েছে, স্ত্রীর বয়স যদি ১৫ বছরের কম না হয়, তাহলে স্বামীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ককে ধর্ষণ বলা যাবে না। অন্যদিকে শিশু যৌন নিগ্রহ রোধ আইন অনুযায়ী, কোনো নারী ১৮ বছরের আগে শারীরিক সম্পর্কে সম্মতি দেয়ার অধিকারী নন। ধর্ষণ-সংক্রান্ত আইন আর শিশু যৌন নিগ্রহ আইনের মধ্যে যে ফারাক ছিল, বুধবার সুপ্রিমকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের এই রায়ে তা দূর হল বলে আইন বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন। সুপ্রিমকোর্টের রায়ে বলা হয়, ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৫ ধারা অনুযায়ী স্বামীকে সুরক্ষা দেয়া সংবিধান এবং অপ্রাপ্তবয়স্ক স্ত্রীর মৌলিক অধিকারের লঙ্ঘন।
টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, দেশটিতে বর্তমানে ২ কোটি ৩০ লাখ অপ্রাপ্তবয়স্ক স্ত্রী রয়েছে। সুপ্রিমকোর্টের এই রায়ে তাদের মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠিত হল। দেশে শিশু বিবাহ একটি বাস্তবতা এবং এ ধরনের বিয়ে রক্ষা করা উচিত, ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের এমন আবেদন প্রত্যাখ্যান করেছে সুপ্রিমকোর্ট।

৬ সেপ্টেম্বর সুপ্রিমকোর্টের বিচারপতি মদন বি লকুর নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ কেন্দ্রের কাছে জানতে চান সংসদ কীভাবে একটি ব্যতিক্রমী আইন তৈরি করতে পারে, যখন একজন স্ত্রীর বয়স ১৮ বছরের নিচে। পরে ৩৭৫ ধারায় অপ্রাপ্তবয়স্ক স্ত্রীর সঙ্গে যৌন সম্পর্ককে ধর্ষণের আওতার বাইরে রাখার বিষয়টি অবৈধ ঘোষণার আবেদন জানিয়ে সুপ্রিমকোর্টে একটি পিটিশন দায়ের করা হয়েছিল। এর পরিপ্রেক্ষিতেই রায় দিয়েছেন সুপ্রিমকোর্ট। ভারতের জাতীয় পরিবার স্বাস্থ্য জরিপ মতে, ভারতের ১৮ থেকে ২৯ বছর বয়সী নারীদের ৪৬ শতাংশই ১৮ বছরের আগে বিয়ের পিঁড়িতে বসেছেন।
রায়ে আদালত বলেন, ১৫ থেকে ১৮ বছর বয়সী যেসব কিশোরী ও তরুণীর বিয়ে এরই মধ্যে হয়ে গেছে, তাদের এ রায়ের বাইরে রাখা অসাংবিধানিক। কোনো পুরুষ যদি ১৮ বছরের কম বয়সী স্ত্রীর সঙ্গে যৌনমিলন করে, তবে সেটি হবে অপরাধ। কমবয়সী স্ত্রী এক বছর সময়ের মধ্যে স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে পারবে। এনডিটিভি জানায়, ভারতের মানবাধিকার সংগঠন ‘ইনডিপেনডেন্ট থট’ ১৮ বছরের কমবয়সীদের বিয়ে বন্ধ নিয়ে সর্বোচ্চ আদালতে একটি আবেদন করেছিল।

(Visited 14 times, 1 visits today)