মির্জাপুর কি খুনের নগরি?

বারবেলা ডেস্ক ঃ

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে আইন শৃংখলা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক অবস্থায় পৌছেছে। মাত্র ১৫ দিনের ব্যাবধানে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে চার খুনের ঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে এ উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা বিরাজ করছে। অনেকের মনে প্রশ্ন বিদ্ধ হচ্চে মির্জাপুর কি খুনের নগরিতে পরিণত হলো?

মাত্র ১৫ দিনের ব্যাবধানে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে চার খুনের ঘটনায় যা আগে কখনও হয়নি। যদিও চারটি পৃথক স্থানে খুনের ঘটনা ঘটেছে এটি আইন শৃংখলা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক অবস্থার ফল হিসাবে অনেকে মনে করছেন।

জানা গেছে, গত ২৬ মে চুকুরিয়া গ্রামের আশরাফ আলী জমি বিক্রির পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে প্রতিপক্ষের আঘাতে প্রাণ হারান।

২৯ মে উপজেলা জামুর্কী ইউনিয়নের বানিয়ারা গ্রামে সেলিনা বেগমকে তার মাদকাসক্ত পুত্র মাদকের টাকা না পেয়ে গলা টিপে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

৬ জুন উপজেলার গোড়াই ইউনিয়নের খামার পাড়াতে বালু ব্যবসাকে কেন্দ্র করে চাচা এবং চাচাতো ভাইয়েরা মিলে শামিম মিয়াকে পিটিয়ে হত্যা করে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সর্বশেষ ৭ জুন মহেড়া ইউনিয়নের আদাবাড়ি গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে ছোট ভাইয়ের হাতে বড় ভাই আজাহার আলী খুন হয়েছে বলে জানা গেছে।

মির্জাপুর জাতিয় পার্টির পৌর সাধারন সম্পাদক আশরাফ আহমেদ বলেন, আমরা চিন্তিত, এর আগে ককনও মাত্র ১৫ দিনের ব্যবধানে এত গুলো খুনের ঘটনা ঘটেনি। আইন শৃংখলা অবনতি হচ্ছে, এদিকে আরো নজর দেওয়া উচিত।

মির্জাপুর বাজার বণিক সমিতির সভাপতি গোলাম ফারুক সিদ্দিকী বলেন ঘটনাগুলির ব্যাপারে তিনি উদ্বিগ্ন। সামজিক অবক্ষয় এবং মাদকই এর জন্য দায়ী বলে তিনি উল্লেখ করেন।

মির্জাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ একে এম মিজানুল হক সাংবাদিককে বলেন, চারটি ঘটনাই অনাকাঙ্খিত। এগুলি আইন শৃংখলা পরিস্থিতির সাথে সম্পর্কযুক্ত নয়। মুলত সামাজিক অবক্ষয় এবং মাদকই এর পেছনে দায়ী বলে মনে করেন তিনি।

Loading...
(Visited 630 times, 4 visits today)