নির্ধারিত সময়ে স্কুলে উপস্থিত না থাকায় ১০ শিক্ষকের একদিনের করে বেতন কাটার সিদ্ধান্ত

0
21
Loading...

নির্ধারিত সময়ে স্কুলে উপস্থিত না থাকায় চট্টগ্রামের দুই প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১০ শিক্ষকের একদিনের করে বেতন কাটার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

যুগান্তরকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার নাসরিন সুলতানা।

তিনি বলেন, নগরের কাট্টলী নুরুল হক চৌধুরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৯ জন এবং সীতাকুণ্ডের ভাটিয়ারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক শিক্ষকসহ ১০ জনকে প্রথমে শোকজ করা হয়।

এর পর তাদের একদিনের বেতন কাটার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ফেব্রুয়ারি মাসের বেতন থেকে এ টাকা কাটা হবে। চিঠির মাধ্যমে তাদের বেতন কাটার বিষয়টি জানানো হয়েছে।

চট্টগ্রাম মহানগরীর অধিকাংশ বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা নিয়মিত স্কুলে আসেন না- এমন তথ্য পেয়ে গত রোববার হঠাৎ স্কুল পরিদর্শনে যান দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ।

রোববার সকাল ৮টা ২৫ মিনিটে চট্টগ্রাম পৌঁছে ৯টা ১৫ মিনিটে নগরীর কাট্টলী নুরুল হক চৌধুরী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যান তিনি।

সেখানে গিয়ে তিনি দেখেন- স্কুলের আট শিক্ষকের মধ্যে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ছাড়া সাত শিক্ষকই ছিলেন অনুপস্থিত।

এর পরই দুদক চেয়ারম্যান সীতাকুণ্ডের ভাটিয়ারি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যান। সেখানে গিয়ে দেখেন- ১১ শিক্ষকের মধ্যে দুজন অনুপস্থিত।

এদিকে এ ঘটনার পর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বিকাল সোয়া ৪টা পর্যন্ত প্রত্যেক শিক্ষকের উপস্থিতি বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

শিক্ষকের উপস্থিতি শিক্ষা প্রশাসনের কর্মকর্তারা তদারকি করে প্রতি মাসে মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন পাঠাবেন। এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. এএফএম মনজুর কাদির।

এ ছাড়া রাজধানী ঢাকার শিক্ষকদের সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বিকাল সোয়া ৪টা পর্যন্ত উপস্থিতির এ নির্দেশনা মানতে হবে। এ ব্যাপারে বুধবার প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় পরিপত্র জারি করেছে।

মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করে যুগান্তরকে বলেন, এটি নতুন কোনো নির্দেশনা নয়। কিন্তু শিক্ষকরা এটি মানতেন না। কিন্তু এখন এ নীতি বাস্তবায়নে সরকার কঠোর তদারকি করবে।

উপজেলায় শিক্ষা কর্মকর্তা ও সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তারা এটি দেখবেন। এ ছাড়া জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, সহকারী পরিচালক এবং উপপরিচালকদের এ দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

(Visited 21 times, 1 visits today)